মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ জুলাই ২০২০

করোনা ভাইরাসের ঔষুধ এবং ভ্যাকসিন তৈরিতে জিনোম সিকোয়েন্সিং-এর তথ্য দিয়ে বিশ্ব গবেষণায় সংযুক্ত হলো বিসিএসআইআর


প্রকাশন তারিখ : 2020-07-20

তারিখ, ঢাকা: ১৯ জুলাই ২০২০

 

বিজ্ঞান ও প্রযু্ক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান আজ বিসিএসআইআর-এর ডিআরআইসিএম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত নভেল করোনা ভাইরাস (কোভিট-১৯) জিনোম সিকোয়েন্সিং বিষয়ক প্রেস ব্রিফিং-এ বলেন, বিসিএসআইআর-এ বিশ্ব মানের জিনোম ল্যাবরেটরি স্থাপন করা হয়েছে। পৃথিবীতে হাতে গোনা কয়েকটি এ ধরনের ল্যাব রয়েছে। আমরা আমাদের গবেষণার ফলাফল বিশ্ব সভায় পৌছে দিচ্ছি। আমাদের সবার মিলিত শক্তি বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আমাদের জিনোম সিকোয়েন্সিং –এর ফলাফলের উপর নির্ভর করে ভ্যাক্সিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ইউনিভার্সেল একটি ভ্যাক্সিন উৎপাদনে সক্ষম হবে। ঔষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আমাদের দেশের করোনা ভাইরাসের মিউটিশনকে বিবেচনায় নিয়ে সঠিক ও কার্যকর ঔষুধ উৎপাদনে  করবে।

 

মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা দেশের বিভিন্ন স্থান হতে ৩০০টি নমুনা সংগ্রহ করে এ গবেষণাগারে সিকোয়েন্সিং করার টার্গেট নিয়ে ছিলাম। প্রায় ২০০ টির নমুনার সিকোয়েন্সিং করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১৭৩ টির ফলাফল Global Initiative on Sharing all Influenza Data(GISAID)এ ফল প্রকাশ করেছে। আমরা পরবর্তীতে আরো বেশি নমুনা নিয়ে কাজ করব এবং করোনা ভাইরাসসহ এ ভাইরাসের সাথে সংযুক্ত অন্যান্য ভাইরাসের বিষয়ে গবেষণা করব।

 

জিনোম ল্যাবের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. সেলিম খান বলেন, আমাদের গবেষণার সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত ছিল অস্ট্রেলিয়া এবং লন্ডনের বিখ্যাত দুটি গবেষণাগার। আমাদের সহকর্মীরাই উক্ত ল্যাবে কাজ করছে। তিনি আরো বলেন,বিসিএসআইআর-এর বিজ্ঞানীদের গবেষণায় দেখা গেছে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস ইতোমধ্যে তার জিনোমিক লেভেলে ৫৯০ টি ও প্রোটিন লেভেলে ২৭৩ টিরও অধিক পরিবর্তন ঘটিয়েছে। এগুলোর মধ্যে ৯৫ শতাংশ ক্ষেত্রে “D614G” করোনা ভাইরাস স্টেইনটি সিকোয়েন্সিং-এ সনাক্ত হয়েছে যা বাংলাদেশের সংক্রমনেণার প্রধান কারণ। এ বিষয়ে গবেষণা লব্দ ফলাফল শীঘ্রই স্বীকৃত পিয়ার রিভিউড জার্নালে প্রকাশিত হওয়ার পথে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তিনি আরো বলেন, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস কর্তৃক বিশ্বব্যাপী বিপর্যয়ে আমাদের ক্ষুদ্র অবদানকে সম্পৃক্ত করতে পারায় আমরা খুবই আনন্দিত। ভবিষ্যতে আমাদের অবদানকে আরো বেশি সম্প্রসারিত করব।

 

এ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেছেন বিসিএসআইআর-এর চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) জনাব মুহাম্মদ শওকত আলী, অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানী ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

//bcsir.portal.gov.bd/uploader/server/../../sites/default/files/files/bcsir.portal.gov.bd/news/0e3453b8_ab16_4e02_9a08_9c2164d49528/2020-07-20-14-11-8e3ceefc7294b742078e8f8eaea429fb.docx

 



Share with :

Facebook Facebook